‘মৃত’ রোগীকে ঢাকায় রেফার্ড করলেন চিকিৎসক

লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় মরিয়ম বেগম নামে এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় রোববার সকালে নিহতের স্বজনরা বিক্ষোভ ও হাসপাতালে ভাঙচুর করেন। এ সময় বিক্ষুব্ধরা হাসপাতালে তালা দিয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবরুদ্ধ করে রাখেন। তবে ঘটনার পর থেকে হাসপাতালের মালিক ও চিকিৎসক সোলেমানসহ অন্যরা পলাতক রয়েছেন।

রোগীর স্বজনদের অভিযোগ, মরিয়মের প্রসব বেদনা উঠলে শনিবার (১৬ জুন) রাত সাড়ে ৩টার দিকে চন্দ্রগঞ্জ রয়েল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সাড়ে ৪টার দিকে চিকিৎসক সোলেমানের তত্ত্বাবধানে তার সিজার করা হয়। সন্তান প্রসব হলেও চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় রোগীর কলিজায় ছিদ্রসহ বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হয়। এতে তার মৃত্যু হয়।

কিন্তু স্বজনদের কিছু বুঝতে না দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য মৃত মরিয়মকে ঢাকায় রেফার্ড করেন চিকিৎসকরা। রোববার সকালে ঢাকা নেওয়ার জন্য অ্যাম্বুলেন্সে ওঠানো হলে নড়াচড়া না দেখে তার মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত হন স্বজনরা।

এ ঘটনার পর ভুল চিকিৎসার অভিযোগ এনে রোগীর স্বজনরা বিক্ষোভ ও হাসপাতাল ভাঙচুর করেন। এক পর্যায়ে তালা দিয়ে হাসপাতালে অবস্থানরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবরুদ্ধ করে রাখেন। তবে এর আগেই অবস্থা বেগতিক দেখে সোলেমানসহ হাসপাতালের অন্যান্য চিকিৎসকরা পালিয়ে যান।

এদিকে চন্দ্রগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জাফর আহম্মদ বলেন, প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনায় থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। বিক্ষোভ ও হাসপাতাল ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটেনি। তবে শুনেছি রোগীর স্বজনরা বিষয়টি মীমাংসা করে নিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
No votes yet.
Please wait...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *